Breaking News

ল্যাবপ্রধান করোনা পজেটিভ, বিআইটিআইডিতে নমুনা পরীক্ষা বন্ধ

ল্যাব প্রধানসহ টেকনোলজিস্ট আক্রান্ত হওয়ায় বন্ধ হয়ে গেছে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ফৌজদারহাটে স্থাপিত বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশন ডিজিজ-বিআইটিআইডিতে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা।

সে সাথে ওই ল্যাবে কর্মরত সব কর্মকর্তা এবং কর্মচারীকেও নিরাপত্তার স্বার্থে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। আর এর ফলে এখানকার করোনা উপসর্গের রোগীদের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।

২৬ মে মঙ্গলবার পরীক্ষায় বিআইটিআইডি ল্যাবের ইনচার্জ ডা. শাকিল আহমেদের করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা শেষে পজেটিভ হিসেবে শনাক্ত হন। একই দিনে ওই ল্যাবের’ও একজন টেকনোলজিস্ট পজেটিভ শনাক্ত হয়। যে কারণে ২৭ মে থেকে ল্যাবের কার্যক্রম এক প্রকার বন্ধ হয়ে যায়। মূলত এই ল্যাবে গত ২৬ মার্চ থেকে চট্টগ্রামে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় বড় ধরণের ভূমিকা রেখে আসছিল।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি জানিয়েছেন, ল্যাব প্রধানসহ দু’জন পজেটিভ হওয়ার প্রেক্ষিতে আপাতত বিআইটিআইডিতে নমুনা পরীক্ষা বন্ধ রাখা হয়েছে। আক্রান্ত দু’জনের সংস্পর্শে থাকা কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদেরও কোয়ারিন্টিনে পাঠানো হয়েছে। সে সাথে ল্যাবকেও জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তাই ল্যাবে কয়েকদিন নমুনা পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। সব কিছু স্বাভাবিক হলে ১ জুন থেকে পুনরায় পরীক্ষা শুরু হতে পারে বলে তিনি আশা করছেন।

সারা দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর সরকার নমুনা পরীক্ষার জন্য বিআইটিআইডিকে অনুমতি দেয় ২৫ মার্চ। আর সেদিন থেকেই ল্যাব প্রধানের দায়িত্ব পালন করছিলেন মাইক্রোবায়েলজি বিভাগের প্রধান ডা. শাকিল আহমেদ। আর প্রতিদিন এই ল্যাবে দু’শ থেকে আড়াইশ নমুনা পরীক্ষা করা হতো।

তবে ফৌজদারহাটের বিআইটিআইডিতে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা বন্ধ থাকলেও চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সাইন্সেস ইউনিভার্সিটি-সিভাসু এবং চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে বর্তমানে নমুনা পরীক্ষা চলছে। এখানে প্রতিদিন দেড়শ থেকে দু’শ নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।

এদিকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জীববিজ্ঞান অনুষদের ল্যাবে’ও করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার অনুমোদন দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে এই ল্যাবে’ও পরীক্ষা শুরু হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

আগে চট্টগ্রামের করোনা রোগীদের নমুনা সংগ্রহের পর তিন থেকে পাঁচদিন সময় লাগতো রিপোর্ট পেতে। কিন্তু বিআইটিআইডি বন্ধ থাকায় রিপোর্ট পেতে বাড়তি সময় লাগছে। তবে কিছু কিছু নমুনা ঢাকা থেকে পরীক্ষা করে আনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকরা।

সুত্র:সময়নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *